Spread the love


নিজস্ব প্রতিবেদকঃ ফরিদপুরে প্রতিপক্ষের হামলায় হাজী শরীয়তুল্লাহ বাজারের সাবেক সভাপতি হাবিবুর রহমান পিকু গুরুতর আহত হয়েছে।
জানাযায়, বাজারের সাবেক সভাপতি হাবিবুর রহমান পিকু ও বর্তমান সাধারণ সম্পাদক নূর ইসলাম মোল্লার মধ্যে ব্যবসার লভ্যাংশ ভাগাভাগিকে কেন্দ্র করে দ্বন্দ শুরু হলে শনিবার (২৮ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় সালিশ বৈঠকের আয়োজন করা হয়।
শহরের হাজী শরীয়তুল্লাহ বাজারে সালিশ বৈঠককে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত হয়েছে কমপক্ষে পাঁচজন।
অন্যান্য আহতরা হলেন, সাবেক সহ সভাপতি এম এ মুসা, সতীস সরকার, মাহামুদুল হাসান হিরক, তাসবিউর রহমান সিক্ত।
এদের মধ্যে গুরুতর আহত অবস্থায় পিকু, হিরক ও সিক্তকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
হাজী শরীয়তুল্লাহ বাজার বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক নূর ইসলাম মোল্লা জানান, “মেসার্স নূর ভান্ডার” নামে আমার ও হাবিবুর রহমান পিকু’র একটি যৌথ ব্যবসা রয়েছে। ব্যবসায় ওয়ার্কিং পার্টনার হিসেবে ব্যবসা পরিচালনার দায়ীত্ব ছিল হাবিবুর রহমান পিকু’র ওপর। ব্যবসায় লাভের প্রায় ২২ লক্ষাধিক টাকা পিকু আত্মসাৎ করায় আমাদের উভয়ের মধ্যে সম্পর্কের অবনতি হয়। পরে বাজার বণিক সমিতিতে অভিযোগ দায়ের করে আমি ব্যবসার সঠিক হিসেব বুঝে দেওয়ার জন্য জানাই। এর প্রেক্ষিতে বণিক সমিতির পক্ষ থেকে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।
বাজার বণিক সমিতির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মো. বজলুর রহমান জানান, গত ২৬ আগষ্ট ১৩ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। তদন্ত কমিটি হিসাব নিকাশ পরীক্ষা নীরিক্ষা শেষে প্রতিবেদন দাখিল করে ।
এদিকে হাবিবুর রহমান পিকু’র স্ত্রীর বড় ভাই আলাল মাহামুদ জানান, সালিশ বৈঠক চলাকালে পূর্ব থেকে প্রস্তুত নূর ইসলাম মোল্লার লোকজন দেশীয় অস্ত্র শস্ত্রে সজ্জিত হয়ে অতর্কিত হামলা চালালে পিকুসহ ওই দুই জন আহত হয়। তিনি এ হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তী দাবী করেন।
ফরিদপুর কোতয়ালী থানার উপ পরিদর্শক নজরুল ইসলাম জানান,খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে হাজির হই। এলাকার পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।


Spread the love