Spread the love

বোয়ালমারী প্রতিনিধিঃ ফরিদপুরের বোয়ালমারীতে তালাকপ্রাপ্ত এক সন্তানের জননীকে ধর্ষণের অভিযোগে বোয়ালমারী থানায় ধর্ষণ ও পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনের ২০১২ এর ৮ ধারায় একটি মামলা হয়েছে। ধর্ষণে সহযোগিতা করায় একজনকে আটক করেছে বোয়ালমারী থানা পুলিশ।
থানা সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ঘোষপুর ইউনিয়নের চরঘোষপুর গ্রামের তালাকপ্রাপ্ত এক সন্তানের জননীকে একই গ্রামের বিদেশ ফেরত সিদ্দিক বিভিন্ন সময় কু-প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। তার প্রস্তাবে সাড়া না দেয়ায় ২৫ অক্টোবর শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে পাশ্ববর্তী ভাইয়ের বাড়ি থেকে টেলিভিশন দেখে বাড়ি ফেরার পথে মহিলাটির পথরোধ করে মুখ চেপে ধরে পার্শ্ববর্তী ঈদগাহে নিয়ে অস্ত্রের মুখে ভয় দেখিয়ে বিবস্ত্র করে মোবাইলে নগ্ন ছবি তুলে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে সিদ্দিক। এ সময় মো. হিমাদুল মোল্যা (৩২) ও অজ্ঞাত একজন মহিলাটির হাত পা চেপে ধরে সিদ্দিককে ধর্ষণে সহায়তা করে।
এ ঘটনায় ধর্ষিতা মহিলা বাদী হয়ে ধর্ষক সিদ্দিক, হিমাদুল মোল্যা ও অজ্ঞাতনামা একজনকে আসামি করে বোয়ালমারী থানায় রবিবার একটি ধর্ষণ মামলা করে। মামলা নম্বর ২১, তারিখ- ২৭.১০.১৯ খ্রি.।
এ ব্যাপারে বোয়ালমারী থানার ওসি আমিনুর রহমান বলেন, ধর্ষনের ঘটনায় সহযোগি হিমাদুলকে আটক করা হয়েছে। অন্যরা পলাতক রয়েছে। ভিকটিমকে ডাক্তারি পরীক্ষার ফরিদপুর মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।


Spread the love