Spread the love


বোয়ালমারী প্রতিনিধি: ফরিদপুরের উপজেলার পরমেশ্বদী ইউনিয়নের ময়েনদিয়া বাজারের উকিল বিশ্বাসের ছেলে ভ্যানচালক কিশোর হাবিবুরের হত্যার রহস্য উদ্ঘাটন হয়েছে। এ ঘটনায় গত রোববার ও সোমবার রাতে উপজেলার ডোবরা ও ময়েনদিয়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে পুলিশ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে। এর মধ্যে দুইজন আদালতে হাবিবুর হত্যার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। গ্রেপ্তারকৃতরা হলো নড়াইল জেলা লোহাগড়া উপজেলার পাঙ্খারচর গ্রামের মোহসিন মোল্যার ছেলে শাহ আলম (২৩)। পাশের আলফাডাঙ্গা উপজেলার ফলিয়া গ্রামের সায়েম মোল্যার ছেলে তাইজুল মোল্যা (২৫) ও উপজেলার ময়েনদিয়া বাজারের ছাকেন সরদারের ছেলে কুটি সরদার (১৯)। আসামিদের মধ্যে সোমবার (২৮.১০.১৯) শাহ্ আলম ও তাইজুল আদালতে হাবিবুরকে হত্যার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। তাদের দেয়া তথ্যে সোমবার রাত ১১টায় কুটি সরদারকে গ্রেপ্তার করা হয়। আসামি গ্রেপ্তারের অভিযানে নেতৃত্বে দেন থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আমিনুর রহমান। এ ব্যাপারে আমিনুর রহমান বলেন, আসামিরা পেশাদার চোর ও ছিনতাইকারী। এদের বিরুদ্ধে বোয়ালমারী ও আলফাডাঙ্গা থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই ইমরান বলেন, আসামিরা গত ২১ আগস্ট সকাল ৯টার দিকে ময়েনদিয়া বাজার থেকে ঘুরতে যাওয়ার কথা বলে হাবিবুরের অটোভ্যান ভাড়া নেয়। এক পর্যায়ে চতুল ইউনিয়নের রাজাবেনী গ্রামের গভীর বাঁশ বাগানে নিয়ে তাকে হত্যা করে অটোভ্যান নিয়ে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় আরও কেউ জড়িত থাকলে তাদেরও আইনের আওতায় আনা হবে। কুটি সরদারকে মঙ্গলবার আদালতে চালান দেয়া হয়। উল্লেখ্য, গত ২১ আগস্ট বুধবার হাবিবুর অটোভ্যান নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়ে আর ফেরেনি। এ ঘটনায় তার বাবা উকিল বিশ্বাস ২২ আগস্ট থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন। পরে লোক মারফত খবর পেয়ে থানা পুলিশ গত ১৫ অক্টোবর ওই বাঁশ বাগান থেকে হাবিবুরের কঙ্কাল উদ্ধার করে।


Spread the love