Spread the love

আ: রাজ্জাক শেখ:খুলনায় ইউপি সদস্যর বিরুদ্বে ৪০ দিনের কর্মসূচীর শ্রমীকদের টাকা আত্বস্বার্থ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে শ্রমীকরা জেলা প্রশাসকের নিকট লিখিত অভিযোগ দিয়েছে। অভিযোগে জানাগেছে, জেলার কয়রা উপজেলার দক্ষিণ বেদকাশি ইউনিয়নের কর্মসূচীর ২ ধাপে ৮০ দিনের কর্মসূচীর কাজ করেন ৩০ জন শ্রমীক। তার মধ্যে ৪৭ দিনের কাজের টাকা ৩০ জন শ্রমীক পাই। বাকী ৩৩ দিনের কাজের ১২ লাখ টাকা শ্রমীকরা পাইনি। এমনকি তাদের পূর্বের জমাকৃত ৪ লাখ টাকাও পাইনি। টাকা না পাওয়ায় অনেক শ্রমীক কষ্টে দিন কাটাচ্ছে। শ্রমীকদের দাবি কয়রা কৃষি ব্যাংকের ম্যানেজার আলমগীর, ইউপি চেয়ারম্যান জি এম কবীর শামসুর রহমান ও ইউপি সদস্য মোজ্জাফার হোসেন শিকারী এ টাকা তারা আতœস্বার্থ করেছে। এব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি। তবে কাজের প্রকল্প কর্মকর্তা ছিল মেম্বর মোজাফ্ফার। সে কি করেছে তা আমি জানি না। ব্যাংক ম্যানেজার আলমগীর বলেন ,টাকা নিয়ে কিছু সমস্যা হয়েছিল।


Spread the love