আজ বুধবার, ২৭শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১১ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং,রাত ১১:৫৫

বোয়ালমারীতে মাদ্রাসা অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে অনিয়ম ও ফরম পূরনে অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের অভিযোগ


বোয়ালমারী প্রতিনিধি: ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার চতুল ইউনিয়নের বাইখীর বনচাকী ফাজিল মাদ্রাসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মাওলানা নাজির আহমদের বিরুদ্ধে পরিচালনা পর্ষদের অভিভাবক সদস্য নির্বাচনে অনিয়ম এবং দাখিল পরীক্ষার্থীদের ফরম পূরণে অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের অভিযোগ উঠেছে। তবে এ সব অনিয়মের কথা অস্বীকার করে অভিযোগের ব্যাখ্যা দিয়েছেন ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ।
জানা যায়, পরিচালনা পর্ষদের অভিভাবক প্রতিনিধি নির্বাচনের জন্য সরাসরি ইলেকশন হওয়ার কথা থাকলেও অধ্যক্ষ সিলেকশনের মাধ্যমে অভিভাবক সদস্য নির্বাচিত করেন। ২০১৮ সালের আগস্ট মাসে কমিটি গঠন করা হয়। রাজু মিয়া নামে একজনকে অভিভাবক সদস্য বানানো হয় যার মেয়ে রাশমিনা তখন বাইখীর চৌরাস্তার এস এ রাজ্জাক একাডেমরী দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্রী ছিলো। ওই একাডেমী থেকে পাশ করে সে বনচাকী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে তৃতীয় শ্রেণিতে ভর্তি হয়। ছাত্র হাজিরা রেজিস্টারে তার নাম রয়েছে। প্রধান শিক্ষক সফিকুল ইসলাম বলেন, রাশমিনা তাঁর স্কুলের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী এবং সে এখানেই নিয়মিত ক্লাস করে। এস এ রাজ্জাক একাডেমীর প্রধান শিক্ষক মলয় কুমার বোস বলেন, রাশমিনা তাঁর বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণির নিয়মিত ছাত্রী ছিলো এবং সেখান থেকেই সে পাশ করে। বাইখীর বনচাকী ফাজিল মাদ্রাসার পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি তবিবুর রহমান মিন্টু অভিযোগ করে বলেন, ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ জালিয়াতি করে রাজু মিয়াকে সদস্য বানিয়েছে। ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ নাজির আহমেদ বলেন, নির্বাচন করার বিধান থাকলেও এলাকার পারিপার্শিক অবস্থার কারণে সিলেকশন করা হয়েছে। যখন কমিটি গঠনের প্রক্রিয়া চলে রাশমিনা তখন মাদ্রাসার দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্রী ছিলো বলে তিনি দাবি করেন, তবে কোন রেজিস্টার দেখাতে পারেননি।
অপরদিকে দাখিল পরীক্ষার ফরম পূরনে বোর্ড ফি প্রায় দুই হাজার টাকা হলেও অতিরিক্ত অর্থ আদায় করা হয়েছে। অধ্যক্ষ নাজির আহমেদ বলেন, ফরম পূরণে তিন হাজার টাকা ধার্য করা হলেও সবার কাছ থেকে তা নেওয়া হয়নি। ২২শ, ২৩শ, ২৫শ করে নেওয়া হয়েছে। কেউ কেউ ১৫শও দিয়েছে। এ সব বিষয়ে সংবাদ প্রকাশ না করার অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, এলাকায় প্রতিষ্ঠান চালাতে হলে অনেক কিছুই করতে হয়। প্রতিষ্ঠানের বা তাঁর কোন ক্ষতি হয় এমন কিছু না করার অনুরোধ জানান অধ্যক্ষ।

     আরো পড়ুন