Spread the love


নিজস্ব প্রতিবেদকঃ ফরিদপুরে ২০১৫ সাল থেকে ৪টি উপজেলায় শুরু হয় ডায়বেটিস প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণের লক্ষ্যে “দ্যা বাংলাদেশ ডি ম্যাজিক ট্রায়াল” গবেষনা ভিত্তিক কার্যক্রম। আর এর অগ্রগতি ও নতুন একটি উপজেলা প্রকল্পের কার্যক্রম বৃদ্ধির লক্ষে কমিউনিটি ওরিয়েন্টেশন সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় ফরিদপুর ডায়বেটিক এসোসিয়েশন মেডিক্যাল কলেজের কনফারেন্স রুমে বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতি এবং ইনিষ্টিটিউট ফর গ্লোবাল হেলথ্, ইউনিভার্সিটি কলেজ লন্ডন এর সাথে যৌথ উদ্যোগে এই সভা অনুষ্টিত হয়।
বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতির সভাপতি প্রফেসর একে আজাদ খান এর সভাপতিত্বে সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন ফরিদপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রোকসানা রহমান, ফরিদপুর ডায়াবেটিক সমিতির সাধারন সম্পাদক প্রফেসর শেখ আব্দুস সামাদ, পেরিনেটাল কেয়ার প্রজেক্ট এর প্রজেক্ট ডায়রেক্টর প্রফেসর কিশোয়ার আজাদ, ডেপুটি সিভিল সার্জন ডাঃ খালেদুর রহমান, বোয়ালমারী উপজেলা চেয়ারম্যান এম এম মোশারফ হোসেন, আলফাডাঙ্গা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এস এম জাহিদ,প্রকল্পের ফরিদপুর জেলা ব্যবস্থাপক মোঃ গোলাম আজম প্রমুখ।

আর এই প্রকল্পটি বাংলাদেশে বাস্তবায়ন করছে পেরিনেটাল কেয়ার প্রজেক্ট যা বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতির একটি প্রকল্প।
সভায় গবেষনার বিশ্লেষনে বলা হয় গত তিন বছরে ৪টি উপজেলার ৯৬টি গ্রামে এই প্রকল্পের মাধ্যমে প্রকল্প এলাকার ১২ হাজার ২৮০ জনের শতকরা ১০.৩% ডায়বেটিস এবং ২০.৩% প্রি-ডায়বেটিস আক্রান্ত ছিলো। এই প্রকল্পে অংশগ্রহন জনগোষ্টির দলীয় সভায় অংশগ্রহনের মাধ্যমে ডায়বেটিস হওয়ার প্রবনতা সফলভাবে কমেছে। এর পাশাপাশি অংশগ্রহনকারীদের ডায়বেটিস বিষয়ে ধারণা এবং সচেতনতা বৃদ্ধি পেয়েছে অনেক। আর এ সফলতার কারনে নতুন একটি উপজেলা বাড়ানো হয়েছে।


Spread the love