আজ মঙ্গলবার, ১৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ১লা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ,রাত ৮:১১

কবি শেখ ফিরোজের সাক্ষাৎকার


শোভন এহসানঃ কবি শেখ ফিরোজ এর জম্ম বেড়ে ওঠা ফরিদপুরে। স্হায়ী নিবাস ফরিদপুর সদর উপজেলার ডোমরাকান্দি গ্রামে। তিনি একাধারে লিখে চলেছেন কবিতা,ছড়া,গল্প। তবে কবিতাতেই তিনি বেশি নিমগ্ন।নিয়মিতই তাঁর লেখা বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকে প্রকাশিত হচ্ছে। এবারের অমর একুশে বইমেলা ২০২০ এ
প্রকাশিত হচ্ছে তাঁর দ্বিতীয় কাব্যগ্রন্হ ‘অনিন্দ্য কঙ্কাল ‘। এ বিষয়ে কবি শেখ ফিরোজের সাথে আলাপচারিতাই ছিলেন দৈনিক আজকের সারাদেশ পত্রিকার নিজস্ব প্রতিবেদক শোভন এহসান।

শোভন এহসানঃ কবি,কেমন আছেন ?
শেখ ফিরোজঃ বেশ ভালো আছি। আপনি কেমন আছেন ?

শোভন এহসানঃ ভালো আছি। এবারের বইমেলায় আপনার একটি বই প্রকাশিত হচ্ছে ‘ অনিন্দ্য কঙ্কাল ‘। বইটি সম্পর্কে জানতে চাই।
শেখ ফিরোজঃ এটি একটি কাব্যগ্রন্হ। বইটির প্রকাশক – অন্যধারা। বইটিতে নাগরিক জীবনের কিছু গভীর বোধকে চিত্রায়িত করা হয়েছে। কিছু সঙ্কট ;যাপিত জীবনে জীবনকে সঙ্কটাপন্ন করে তোলে। সেই বিষাক্ততা ক্রমান্বয়ে সৃষ্টি করে ক্রণিক সংকট। এমন কিছু সংকটের নিয়ামককে তুলে ধরা হয়েছে। তুলে ধরা হয়েছে-প্রাপ্তি অপ্রাপ্তির সমীকরণে সৃষ্ট আশাহত জীবনকে সুন্দর করে তোলার কিছু কাব্যিক সমাধান। অর্থাৎ,জীবনকে উপভোগ্য করা।

শোভন এহসানঃ আপনার কবিতা লেখার শুরুটা কিভাবে হল ?
শেখ ফিরোজঃ আমার লেখালেখির শুরুটা মূলত ছড়া দিয়ে। আমার ছড়া লেখার শুরু হয় আমি যখন ষষ্ঠ শেণীতে পড়ি তখন থেকে। এর পর অষ্টম শ্রেণী থেকে আমার কবিতা লেখার শুরু।পাঠ্যপুস্তকের কবিতা আমাকে খুব টানতো। এরপর আমি অন্যান্য কবিতার বই পড়তে শুরু করি। আমার পড়ার রুমে বিভিন্ন কবিদের ছবি টানাই। মূলত এটা আমার অবচেতন মন থেকেই এসেছে। কবিতার প্রতি ভালোবাসা থেকে এসেছে। আসলে আমি তখনই বুঝতে পারি যে,আমি কবিতার প্রেমে পরে গেছি।

শোভন এহসানঃ এবারের বইটি কাকে উৎসর্গ করলেন ?
শেখ ফিরোজঃ ডোমরাকান্দি উচ্চ বিদ্যালয়ের আমার একজন শিক্ষক জনাব মোঃ আলমগীর হোসেনকে। তিনি আমাকে সাহিত্য চর্চার ক্ষেত্রে অনেক বেশি অনুপ্রাণিত করেছেন।অষ্টম শ্রেণীতে যখন পড়ি,তখন তাঁর কাছে আমি প্রাইভেট পড়তাম।তিনি একদিন আমার খাতায় অংক করে দিতে গিয়ে আমার লেখা একটি কবিতা পড়েন এবং প্রশংসা করেন।এর পর থেকে প্রায়ই তিনি আমার কবিতা পড়তেন।ভালোলাগা প্রকাশ করতেন। এখনও কথা হলেই তিনি আমার লেখালেখির অবস্হা আগেই জানতে চান। অর্থাৎ,আমার লেখালেখির ক্ষেত্রে তাঁর অনুপ্রেরণার অবদান অনেক।

শোভন এহসানঃ আপনি একজন পুরোদস্তুর ব্যাংকার, আবার একজন পুরোদস্তুর লেখক। কিভাবে সম্ভব ?
শেখ ফিরোজঃ দেখুন, একজন পুরুষ কারও ছেলে,কারও ভাই, কারও স্বামী, কারও পিতা ইত্যাদি ইত্যাদি। অর্থাৎ,আচরণ ভেদে তার ভিন্নতা।ঠিক তেমনই আমি পেশাদারিত্বের জায়গায় সম্পূর্ণই একজন পেশাদার মানুষ।আবার লেখালেখির জগত সম্পূর্ণই একজন লেখক হিসেবে আমার বিচরণ।সব ক্ষেত্রে সঠিক কর্মটি সম্পাদন করতে পারাটাকেই আমি সঠিক জীবনাচরণ মনে করি।

শোভন এহসানঃ একজন কবি হিসেবে আপনি বাংলা সাহিত্যে কবিতাকে কেমন দেখতে চান ?
শেখ ফিরোজঃ আমি চাই কবিতা হোক তোষামোদি মুক্ত। কবিতা হোক সময় স্বীকার্য। কবিতা হোক জীবনের পরিচ্ছদ। কবিতাতো জীবনের কথাই বলে।

শোভন এহসানঃ আপনার উল্লেখযোগ্য লেখা কোনটি ?
শেখ ফিরোজঃ আসলে কোনটি উল্লেখযোগ্য তা পাঠকই বিচার করব।

শোভন এহসানঃ আপনার বইটি কোথায় পাওয়া যাবে ?
শেখ ফিরোজঃ বইটি পাওয়া যাবে অমর একুশে বইমেলায় অন্যধারার স্টলে। স্টল নং-৫৯৯-৬০১ -এ। তাছাড়া কেউ চাইলে rocomari.com থেকে ঘরে বসেও সংগ্রহ করতে পারবেন।

শোভন এহসানঃ আপনার পাঠকদের উদ্দেশ্যে কিছু বলুন।
শেখ ফিরোজঃ পাঠকদের উদ্দেশ্য শুধু বলব,আসুন আমরা নিজেকে ভালোবাসার চর্চা করি।

শোভন এহসানঃ আপনাকে ধন্যবাদ।
শেখ ফিরোজঃ আপনাকেও ধন্যবাদ।

     আরো পড়ুন