Spread the love

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ প্রায় ১৩ কোটি ৬৫ লাখ টাকা ব্যয়ে ফরিদপুরে নির্মিত হয়েছে এসপির কার্যালয়। মুজিববর্ষেই এর উদ্বোধন হবে।
এটি চালু হলে জেলায় পুলিশ বিভাগের কার্যক্রম আরো গতি পাবে বলে বলে সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন।

২০১৭ সালের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ফরিদপুরে এসে ৮ হাজার ২০০ বর্গ ফুট বিশিষ্ট এ ভবন নির্মাণ কাজ উদ্বোধন করেন।

এ বছরের ৩১ জানুয়ারি এর নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হয়। ৬ তলা বিশিষ্ট এ কার্যালটিতে রয়েছে সুপ্রসশস্ত ভিডিও কনফারেন্স রুম, আগন্তুকদের বিশ্রাম কক্ষসহ নানাবিধ সুবিধা। নিরাপত্তার স্বার্থে এখানে প্রবেশাধিকার সংরক্ষিত করা রয়েছে। এজন্য রয়েছে সিক্যুরিটি কি’র ব্যবস্থা।

ফরিদপুরের গণপূর্ত বিভাগ জানায়, সারাদেশে ৯টি জেলায় এসপি কার্যালয়ের ভবন নির্মাণ কাজের অংশ হিসেবে এ ভবনটি নির্মাণ করা হচ্ছে। তবে জেলা শহরের আধুনিক মানের এটিই একমাত্র ৬ তলাবিশিষ্ট এসপির কার্যালয় হচ্ছে।

ফরিদপুরের এসপি আলিমুজ্জামান পিপিএম (সেবা) জানান, এ জেলায় সেবাগ্রহিতাদের পরিসর বেড়েছে। জনগণও বেড়েছে। সেসঙ্গে পুলিশ কার্যালয়ের জনবলও বেড়েছে। এখন পুলিশের সুপারভিশন (পর্যবেক্ষণ) জরুরি হয়ে পড়েছে। দেশের অন্যান্য ক্ষেত্রের মতো পুলিশ বিভাগেও ডিজিটালাইজেশন হচ্ছে উল্লেখ করে তিনি জানান, কাজের তদারকি নিশ্চিত না হলে পুলিশের সেবার মান বাড়বে না। তারা একটি সুপার কানেকটিভি গড়ে তুলতে চাইছেন। এসবের জন্য নতুন এ ভবনটি বিশেষ জরুরি ছিল বলে তিনি উল্লেখ করেন।

তিনি বলেন, জনগণ এখন ঘরে বসেই সেবা পাচ্ছে। ই-পাসপোর্ট, পুলিশ ক্লিয়ারেন্স, পুলিশ ভেরিফিকেশনের জন্য এখন ঘরে বসে অনলাইনেই আবেদন করা যাচ্ছে। ডিজিটাল স্বাক্ষরও চালু হয়েছে।

এসপি বলেন, একটি আধুনিক নগরী গড়ে তুলতে সার্ভিলেন্স সিষ্টেম গড়ে তোলা দরকার। তার সবকিছুই এখান থেকে নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হবে। আমরা এখানে সব সুযোগ সুবিধা সম্পন্ন একটি নিয়ন্ত্রণ কক্ষ গড়ে তোলার লক্ষ্যে কাজ করছি। হয়তো ভবিষ্যতে এখানে একটি মিডিয়া সেন্টারও গড়ে উঠবে।

ভবন নির্মাণে নিয়োজিত ঠিকাদার মনোয়ার হোসেন বলেন, এরইমধ্যে ভবন নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এখন ইন্টেরিয়র ডেকোরেশনের কাজ করছেন ভিন্ন ঠিকাদার। সেটি শেষ হলে ভবনের সব কাজ শেষ হবে। ভবনটিতে আধুনিক সুযোগ সুবিধা সম্বলিত সব ধরণের ব্যবস্থা থাকবে।

ফরিদপুর গণপূর্ত বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী সুলতান মাহমুদ শওকত বলেন, ভবনটির সম্মুখভাগ টাইলস আবৃত। এ কারণে ভবনটি দৃষ্টিনন্দন এবং এর বহিরাবরণে আর মেরামত করার প্রয়োজন হবে না। ৬ তলা এ ভবন নির্মাণ কাজের পাশাপাশি সীমানা প্রাচীর ও আভ্যন্তরীণ চলাচলের পথও তৈরি করা হয়েছে। জেলা শহরে এটিই প্রথম ৬ তলাবিশিষ্ট এসপির কার্যালয় হবে। মুজিববর্ষের আগেই এটি উদ্বোধন করা হবে।


Spread the love