Spread the love

নিজস্ব প্রতিবেদক: বৈশ্বিক দুযোর্গ করোনা ভাইরাস বাংলাদেশকেও আক্রান্ত করেছে। যদিও ফরিদপুর জেলায় এখন পর্যন্ত আক্রান্তের খবর পাওয়া যায় নি। তবে করোনার ছোবল থেকে রক্ষা পেতে জেলা প্রশাসনের প্রচারনামূলক কার্যক্রমে সারা দিয়ে এ জেলার মানুষ নিজ গৃহে অবস্থান করছে। গৃহে অবস্থানকারীদের মধ্যে খেটে খাওয়া পরিবারও রয়েছে। তাদের বিষয়টি বিবেচনায় রেখে কর্মহীনদের দ্বারে ত্রান নিয়ে ছুটে গেলেন ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক জনাব অতুল সরকার। তিনি বাড়ি বাড়ি ঘুরে করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাবে কর্মহীন হয়ে পড়া মানুষের মাঝে ত্রান বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।

আজ সকাল ১০টায় ফরিদপুর জেলা প্রশাসন ও প্রধানমন্ত্রীর ত্রান তহবিল হতে প্রাপ্ত ত্রান ফরিদপুর সদর উপজেলার কানাইপুর ইউনিয়নের কাশিমাবাদ এলাকায় কর্মহীন হয়ে পড়া মানুষের মাঝ থেকে বিতরণ কার্যক্রমের শুরু করেন। এরপর ইউনিয়নের অন্য এলাকাগুলোতেও বিতরণে তারা অংশ নেন। এসময় প্রতিটি পরিবারের মাঝে ১০ কেজি চাল, ১ কেজি ডাল, ১ কেজি তেল, আলু, পিয়াজ, সাবান, মাস্ক সম্বলিত এ ব্যাগ তুলে দেওয়া হয়। কানাইপুর ইউনিয়নের ২০০ শত পরিবার সহ জেলায় মোট ১৬০০ পরিবারের মাঝে এ খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

ত্রান বিতরণে ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক অতুল সরকার ছাড়াও পুলিশ সুপার মোঃ আলিমুজ্জামান, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মাসুম রেজা, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক মোল্লা ও কানাইপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যানসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

এসময় ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক অতুল সরকার বলেন, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে মুক্ত থাকতে সকলকে ঘরেই থাকতে হবে, এতে যাদের রোজগারের রাস্তা বন্ধ হয়ে গিয়েছে তাদের জন্য সরকার ত্রাণের ব্যবস্থা করেছে। কেউ ঘর থেকে বের হবে না, আপনাদের যা প্রয়োজন আমরা তা ঘরে ঘরে পৌছে দিব। সরকার আপনাদের জন্য পর্যাপ্ত ত্রাণের ব্যবস্থা করেছে। আপনারা সুস্থ থাকলে আপনাদের পরিবার সুস্থ থাকবে। পরিবারের কথা চিন্তা করে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত আপনারা ঘরেই অবস্থান করুন। তিনি জানান, ৯টি উপজেলার জন্য খাদ্য সহায়তা বিতরন কর্মসূচিতে ৩১শত ০৬টি পরিবারের জন্য ১১৫ মেঃ টন চাল ও নগদ ১৮ লক্ষ ১০হাজার টাকা বরাদ্ধ দেয়া হয়েছে। পর্যায়ক্রমে অসহায় মানুষের মাঝে বিতরন করা হচ্ছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।


Spread the love