Spread the love

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ জেলার মতলব উত্তর উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়নের মুন্সিকান্দি গ্রামে জ্বর, বমি ও পাতলা পায়খানায় জুলেখা বেগম (৫৫) নামে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার (৩ মার্চ) রাতে তিনি মারা যান। এ ঘটনার পর শনিবার (৪ মার্চ) সকাল থেকে ওই নারীর বাড়িসহ আশপাশের ৫টি বাড়ি লকডাউন ঘোষণা করেছে প্রশাসন।

মতলব উত্তর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ এম জহিরুল হায়াৎ এ ব্যাপারে বলেন, ‘ডাক্তার আমাকে  বলেছেন তার করোনা উপসর্গ ছিল। তার মৃত্যুর পর ওই নারীর বাড়িসহ আশপাশের পাঁচটি বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে।’ তিনি জানান, পরিস্থিতির ওপর নির্ভর করবে কতদিন লকডাউন থাকবে।’

মারা যাওয়া নারীর নমুনা সংগ্রহ করে পাঠানো হয়েছে করোনা টেস্টের জন্য। এ ঘটনায় এলাকাবাসীর মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, ওই নারী মানসিক ভারসাম্যহীন ছিলেন। তিনি বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে বেড়াতেন। তিনি দু’দিন আগে নারায়ণগঞ্জ থেকে মতলব উত্তরে আসেন।

চাঁদপুরের সিভিল সার্জন ডাক্তার সাখাওয়াত উল্লাহ বলেন, ‘ওই নারী তার বাবার বাড়িতে একটা আলাদা ঘরে থাকতেন। রাতে তার পাতলা পায়খানা হয়েছিল। জ্বর-বমিও ছিল। সকালে তার কোনও সাড়া না পেয়ে স্বজনরা গিয়ে দেখেন তিনি মারা গেছেন। পরে বিষয়টি জানালে আমরা ঢাকার সঙ্গে কথা বলি। ঢাকায় পাঠানোর জন্য তার নমুনা নেওয়া হয়েছে।  আগামীকাল তা পরীক্ষার জন্য আইইডিসিআর এ পাঠানো হবে।’

তিনি বলেন,‌ ‘আমরা তার স্বজনদের সঙ্গে কথা বলে জেনেছি, তিনি মানসিক বিকারগ্রস্ত ছিলেন। কিছু দিন আগে নারায়ণগঞ্জে গিয়েছিলেন। এছাড়া বিভিন্ন জায়গায় ঘোরাঘুরিও করতেন।’


Spread the love