Spread the love

    

ভাঙ্গা প্রতিনিধিঃ ফরিদপুরের ভাঙ্গায় মাদ্রাসার জমি দখল করে দোকানঘর নির্মানকে কেন্দ্র করে দুই উপজেলার দুই গ্রামবাসীর মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে ১ গ্রাম পুলিশ সদস্যসহ কমপে ২৫ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এলাকায় অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে প্রকাশ, সোমবার দুপুরে জেলার ভাঙ্গা উপজেলার আলেখার কান্দা ও সদরপুর উপজেলার ব্রাহ্মন্দী গ্রামের ভেন্নাতলী বাজারে মাদ্রাসার জায়গা দখল করে দোকানঘর নির্মান করা নিয়ে বিবাদমান লোকজনের সাথে কথা কাটাকাটি হয়। এ সময় উপস্থিত ভাঙ্গা উপজেলার নাসিরাবাদ ইউ,পি চেয়ারম্যান নুরে আলম সিদ্দিকী লাভলু উভয় পকে শান্ত হওয়ার জন্য আহবান জানান।এক পর্যায়ে ব্রাহ্মন্দী গ্রামের লোকজন চেয়ারম্যানের কথা অমান্য করে আলেখার কান্দা গ্রামের লোকজনের উপর ইট পাটকেল ছুড়তে থাকে।এ ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যান ও গ্রাম পুলিশসহ লোকজন দিগ্ধিদিক ছুটাছুটি করতে থাকে।খবরটি ছড়িয়ে পড়লে নাসিরাবাদ ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামের লোকজন ঢাল,সরকি,রামদা প্রভৃতি দেশীয় অস্ত্র নিয়ে তাদের প্রতিহত করতে ছুটে আসে।এসময় তারা সদরপুরের ঢেউখালী ইউনিয়নের ব্রাহ্মন্দী, চরডুবাইল সহ আশ পাশের এলাকার লোকজনকে ধাওয়া দিলে তারা পিছু হটে দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে এগিয়ে আসে। এতে এলাকা রণক্ষেত্রে পরিনত হয়।সংঘর্ষে গ্রাম পুলিশ সদস্য আঃ মান্নান সহ দুই পক্ষের কমপে ২০ জন আহত হয়েছে।আহতদের সদরপুর হাসপাতাল সহ স্থানীয় কিনিকে ভর্তি করা হয়েছে। খবর পেয়ে ভাঙ্গা ও সদরপুর থানার আইন-শৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।উক্ত ঘটনায় সদরপুর সহকারী কমিশনার (ভ‚মি)সজল কান্তি ভৌমিক ,ভাঙ্গা উপজেলার পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং লোকজনকে তাৎনিক এলাকা ত্যাগ করতে নির্দেশনা দেন। এ ঘটনায় সেনাবাহিনীর একটি দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে বর্তমানে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।


Spread the love