Spread the love


বোয়ালমারী প্রতিনিধি : ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলায় শিখা রায় (৪৫) নামে আরও একজন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তিনি উপজেলার চতুল ইউনিয়নের ধুলপুকুরিয়া গ্রামের বাসিন্দা। তাঁর বয়স ৪৫। তিনি স্বামীর সাথে ঢাকায় থাকতেন। তার স্বামী লিভার সিরোসিস হয়ে মারা গেলে গত রোববার তিনি বাড়িতে আসেন। এ নিয়ে উপজেলায় ৫ জন করোনায় আক্রান্ত হলো। বোয়ালমারী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. খালেদুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ওই মহিলা রবিবার ঢাকা থেকে বোয়ালমারীতে আসেন। করোনা উপসর্গ দেখা দেয়ায় সোমবার তার কোভিড-১৯ পরীা করা হয়। মঙ্গলবার জানা যায় তার করোনা পজিটিভ। তার শারীরিক অবস্থা ভাল থাকায় তাকে বাড়িতেই আইসোলেশনে রাখা হয়েছে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ঝোটন চন্দ বুধবার (০৬.০৫.২০) বলেন, ওই গ্রামে যে মহিলার করোনা ভাইরাস ধরা পড়েছে। তার স্বামী ঢাকায় একটি হাসপাতালে মারা যায়। পরে গত রোববার বাড়িতে এনে তার সৎকার কাজ শেষ করে। ওই সৎকার কাজ শেষ করার সময় যারা সেখানে উপস্থিত ছিল তাদের সম্পর্কে খোজ খবর নিয়ে পূর্ণাঙ্গ নাম ঠিকানাসহ সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শরীফ সেলিমুজ্জামান লিটুকে জানাতে বলেছি। আপাতোত ওই সৎকার কাজের সাথে যারা জড়িত ছিল তাদের ১৯টি বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে। বাকিগুলো খোজ খবর নেওয়া হচ্ছে।
এর আগে উপজেলার গুনবহা ইউনিয়নের উমরনগর গ্রামের চট্টগ্রাম ফেরত ১ জন করোনায় আক্রান্ত হন এবং পরবর্তীতে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে যান। বোয়ালমারী সদর ইউনিয়নে কালিয়ান্ডু গ্রামের ১ জন, পরমেশ্বরদী ইউনিয়নের পুতন্তিপাড়া গ্রামের একই পরিবারের ঢাকা ফেরত ২ জন করোনা আক্রান্ত।


Spread the love