Spread the love

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

ফরিদপুরের সদর উপজেলার ডিগ্রিরচর ইউনিয়নের ধলারমোড় ও আইজউদ্দিন মাতুব্বরের ডাঙ্গি এলাকায় বজ্রপাতে মারা গেছেন তিনজন।

শনিবার বেলা ৩ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। ওই তিনজন রাস্তার উপর কাজ করার সময় বজ্রপাতের শিকার হন।

ধলার মোড় নামক স্থানে মারা যায় দুইজন এরা হলেন রিপন মোল্লা (৩২) ও বাবু খাঁ (৩৫)। অপরজন মারা যায় আইজউদ্দিন মাতুব্বরের ডাঙ্গি এলাকায় তার নাম সুজন (২৫)। পেশায় তিনি একজন ট্রাক ড্রাইভার।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ডিগ্রিরচর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মেহেদি হাসান মিন্টু ফকির বলেন, বিকেল তিনটার দিকে হঠাৎ বৃষ্টি ও বজ্রপাত শুরু হয়। এসময় তারা তিন জন রাস্তার উপর কাজ করার সময় বজ্রপাতে শিকার হয়। পরে তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষনা করে।

অপরদিকে ফরিদপুরের মধুখালী পৌরসভার বৈকুন্ঠপুর আদিবাসী পল্লীটি কালবৈশাখী ঝড়ে বিধ্বস্ত হয়েছে। গতকাল রাত ৮টার দিকে কালবৈশাখী ঝড় শুরু হয়ে তান্ডব চালায় আদিবাসী পাড়ায়। ১২০টি পরিবারের মধ্যে ৩০টি পরিবারের মাথাগোজার বসতঘরসহ রান্না ঘর গোয়াল ঘর সম্পুর্ণরূপে বিধ্বস্ত হয়েছে। আদিবাসী পল্লীতে হতদরিদ্র লোকজন বসবাস করে। যাদের উপার্যন মূলত মধুখালী বাজারের উপর নির্ভরশীল। করোনা ভাইরাসের প্রভাবে এমনিতেই তাদের উপার্যন নাই বললে চলে তার উপর গতকালের ঝড় তাদেরকে মহাবিপদে ফেলে দিয়েছে।
ক্ষতিগ্রস্থ রাজকুমার সরদার, মুকুল সরকার, নেপাল সরকার, সুনীল সরকারসহ অনেককে দেখা যায় ধ্বংস হওয়া বাড়ী ঘর সরানোর চেষ্টা করছে। তাদের বসত ঘরের উপর বড় বড় গাছ চাপা পড়ায় ঘরগুলো দুমড়ে মুচড়ে গিয়েছে।


Spread the love