Spread the love

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ ফরিদপুরে বোয়ালমারীতে করোনা আক্রান্ত বীরমুক্তিযোদ্ধা খায়রুল আলম ওরফে মিলু কেরাণী (৮০) মঙ্গলবার দুপুরে মারা গেছেন।

ফরিদপুর জেলার মধ্যে বোয়ালমারীতেই এই প্রথম কোনো করোনা রোগীর মৃত্যু হলো।

তিনি ক্যান্সারসহ নানাবিধ জটিল রোগে আক্রান্ত হয়ে ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। চিকিৎসকরা তার চিকিৎসার ব্যাপারে আশাহীন হয়ে তাকে ছাড়পত্র দিলে ১৬ মে শনিবার তিনি ঢাকা থেকে স্ব-স্ত্রীক নিজবাড়ী উপজেলার চতুল ইউনিয়নের রাজাপুর গ্রামে ফিরে আসেন।

খবর পেয়ে ঐ দিনই উপজেলা প্রশাসন ও স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ তার ও তার পরিবারের ৯ জনের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ ল্যাবে পাঠায়।

১৭ মে ল্যাব থেকে পাওয়া প্রতিবেদনে জানা যায়, মুক্তিযোদ্ধা ও তার সহধর্মিণীর করোনা পজিটিভ। আক্রান্ত খায়রুল আলম নিজ বাড়ীতে আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় ১৯ মে মঙ্গলবার দুপুরে মারা যান।

তিনি দীর্ঘদিন উপজেলার বোয়ালমারী সদর, পরমেশ্বরদী ইউনিয়নসহ কয়েকটি ইউনিয়নের সচিব হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ঝোটন চন্দ্র জানান, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের স্বেচ্ছাসেবক আলেমরা এই বীরমুক্তিযোদ্ধার মৃতদেহ দাফনে সার্বিক সহযোগিতা করবে। যেহেতু তিনি একজন বীরমুক্তিযোদ্ধা ছিলেন তাই রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় তার দাফন সম্পন্ন করা হবে।

উল্লেখ্য, এ পর্যন্ত বোয়ালমারী উপজেলায় মোট ২১ জনের শরীরে করোনা পজিটিভ ধরা পড়ে। আক্রান্তদের মধ্যে ৩ জন সুস্থ হয়েছেন। ২ জন ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। বাকিরা নিজ বাড়ীতে আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

ফরিদপুর জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ জানায় এ পর্যন্ত জেলায় ৬৬ জনের করোনা পজিটিভ পাওয়া গেছে। এর ভিতর এই প্রথম কোন করোনা রোগীর মৃত্যুর ঘটনা ঘটলো।


Spread the love