Spread the love

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ সমগ্র বিশ্বব্যাপী নোভেল করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে এই ঈদে অনেক অসহায় পরিবার হয়তো দেখবে না পোলাও, মাংস ও  সেমাই চিনির মুখ। তাই মানুষ মানুষের জন্যে, জীবন জীবনের জন্যে-একটু সহানুভূতি কি মানুষ পেতে পারেনা? এই উপপাদ্যকে বুকে ধারণ করেই ফরিদপুর সদর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের পাড়াগাঁয়ে অসহায় পরিবারের মাঝে নিরলসভাবে ঈদ উপহার পৌঁছে দিচ্ছে বাতিঘর নামক মানবদরদী স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন।

স্বেচ্ছাসেবী বাতিঘর সংগঠনের নেতৃবৃন্দ জানান গত সপ্তাহে ঘূর্ণিঝড় আম্পানের প্রভাবে ফরিদপুরে সারারাত ব্যাপী ঝড়ো হাওয়া প্রবাহিত হয়েছে এবং ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে এরমধ্যেও তারা ফরিদপুর সদর উপজেলার যে সমস্ত এলাকায় তাহারা খাদ্য সামগ্রী ও ঈদ উপহার বিতরণ করেছে!

ব্রাহ্মণকান্দা, কবিরপুর, মুরারীদহ, শোভারামপুর, রঘুনন্দনপুর, আলীপুর, খাবাসপুর, লক্ষিপুর, টেপাখোলা, সিএন্ডবি ঘাট, কানাইপুর, মৃগী, গঙ্গাবর্দী, ডোমরাকান্দি, বদরপুর, বাহিরদিয়া, কোমরপুর, শোমসপুর, কৈজুরি, অম্বিকাপুর, মাচ্চর, ধুলদি, পাচ্চর, বনগ্রাম, গোয়ালচামট ১নং সড়ক, গোয়ালচামট ২নং সড়ক, গোয়ালচামট ৩নং সড়ক, বেতুয়া বাড়ি সড়ক, ঝিলটুলি, নিলটুলি, পাকিস্থানপাড়া, মোল্লাবাড়ি সড়ক, আঙ্গিনাপল্লী, তাম্বুলখানা, ঈশানগোপালপুর, কালীতলা হাট গোবিন্দপুর, বাইপাস রোড সংলগ্ন, মুন্সিরবাজার, হাড়োকান্দি, হাবেলী গোপালপুর, বইটাখালি, কোমরপুর ও ফরিদপুর সদর আসনের আরো অনেক গ্রামে আমাদের ঈদ উপহার বিতরন অব্যাহত রয়েছে।

উল্লেখিত এলাকা থেকে বিশ্বস্ত স্বেচ্ছাসেবী গণের মাধ্যমে সঠিকভাবে যাচাই বাছাই করে একবারে হতদরিদ্র এবং লজ্জা রেখে না খেয়ে মরতে রাজি এর সাথে বিধবা, পঙ্গু, ভিক্ষুক, ছিন্নমূল মানুষের মাঝে ঈদের উপহার সামগ্রী পৌঁছে দিয়েছে।

ভাবতেই অবাক লাগে এই স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনটির কেন্দ্রীয় সদস্য বৃন্দের নিরলস পরিশ্রমের বিষয়।

বাতিঘর স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন এর অহংকার মুক্ত সদালাপী অন্যতম একজন সদস্য জানান, আমরা বিভিন্ন জায়গা থেকে এমন ব্যক্তিদের খুঁজে বের করে ঈদ উপহার পৌঁছে দিয়েছি যারা লজ্জা রেখে না খেয়ে মরতে রাজি কিন্তু কাউকে অভাবের কথা জানাই না।

আমরা আমাদের নিজ অর্থে সাধ্যমত উপহার সামগ্রী পৌঁছে দিয়েছি, এরপরে শুভাকাঙ্খীদের দেওয়া আর্থিক সহযোগিতা যথাযথ ভাবে মানসম্মত খাদ্য সামগ্রী ক্রয় করে নিরলসভাবে পৌঁছে দিয়েছি।

খাদ্য ও ঈদ উপহার সামগ্রী তালিকায় অর্থাৎ পুণ্য থলেতে রয়েছে: মুরগি, পোলার চাউল, ভাতের চাউল, মাংসের মসলা, আলু, পেঁয়াজ, তেল, সেমাই, সুগন্ধি সাবান, কাপড় ধোয়ার সাবান, শ্যাম্পু, দুধ, চিনি, আতর ইত্যাদি।

এখনো যদি আরো কোনো বিত্তবান ব্যাক্তি আমাদের সহযোগিতা করতো তাহলে আমরা আরো অনেক পরিবারকে সহায়তা করতে পারতাম এবং এই ধারা অব্যাহত রাখতে সক্ষম হবো, ইনশাআল্লাহ্।


Spread the love