Spread the love

রবিউল হাসান রাজিবঃ ফরিদপুর জেলার বোয়ালমারী উপজেলার সাতৈর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমানের ছোট ভাই বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজসেবক যুবনেতা এনামুল মোল্লার বিরুদ্ধে মিথ্য ও ভিত্তিহীন খবর প্রকাশের তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন তার নিজ এলাকা সাতৈর ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ডের বেড়াদী গ্রামের জনসাধারণ।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, ছোট থেকে বৃদ্ধ সকলের কাছে ভালবাসার একজন মানুষের নাম এনামুল। এলাকাবাসীর ভাষ্যমতে অল্প বয়সে সকলের প্রিয় পাত্র হয়ে উঠেছে এনামুল, তাই হালে অবৈধ অর্থ সম্পত্তির মালিক বনে যাওয়া কিছু লোকের চক্ষুশুল হয়ে উঠেছে এনামুল।

এলাকায় কোন ধরনের অপকর্ম হলেই সেখানে প্রতিবাদ করে এনামুল, যে কারণে বিরোধী পক্ষ কোন কাজে সুবিধা করতে না পেরে এনামুলের বিরুদ্ধে এই মিথ্য, বানোয়াট ও ভিত্তিহীন গল্প সাজিয়ে প্রচার করছে।

সকাল থেকে রাত পর্যন্ত তার ছুটে চলা সাতৈর ইউনিয়নের সাধারণ জনগণের জন্য। এই গরিব দুঃখী অসহায় মানুষের পাশে থাকেন তিনি। এটাই তার অপরাধ।

সাতৈর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমান এর কাছে মুঠো ফোনে কথা বললে তিনি জানান এনামুল যুবলীগ করেন এবং ব্যাবসা করেন গরিব দুঃখিদের পাশে থেকে কাজ করে, আমার জানামতে এনামুল কোনো খারাপ কাজের সাথে জড়িত নাই, তারপরেও আপনারা তদন্ত করেন।

সাতৈর ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড এর আওয়ামী লীগ সভাপতি আবু সাঈদ মোল্লার কাছে জিজ্ঞেস করলে তিনি বলেন, এনামুল মোল্লা একজন ভালো ছেলে তার বিরুদ্ধে যে সকল অভিযোগ উঠেছে তার কোন ভিত্তি নেই। তবে হ্যাঁ, তিনি লড়াই করেন আর সে লড়াইটা অন্যায়ের প্রতিবাদ হিসেবে, তার এ লড়াইয়ে আমরাও তার প্রশংসা করি।

এনামুলকে কখনো দেখিনি ধুমপান করতে বা কখনো দেখিনি কোন বয়স্ক লোকের সাথে খারাপ আচরণ করতে। তার বিরুদ্ধে যারা এগুলো প্রচার করছে তা উদ্দেশ্য প্রণোদিত এবং সমাজের চোখে, প্রশাসনের চোখে তাকে হেয় করার জন্য, দোষী সাব্যস্ত করার জন্য। যারা এগুলো করছে তারা খুবই অন্যায় করছে, আমি এর তীব্র নিন্দা জানাই।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন বলেন, গত কয়েক বছরে এলাকার দেলোয়ার হোসেন (যে সিএমএম কোর্টে মুহুরীর কাজ করে) হাজার কোটি টাকার মালিক হয়েছে। অথচ সে এসএসসি পাশও করেনি। সে ঢাকায় থাকলে আওয়ামীলীগ আর এলাকায় বিএনপির অর্থ যোগান দাতা ও মদদ দাতা। তারই মদদে চলে ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি জাকির হোসেন টিআই।

এই জাকির হোসেন ও তার দলবল দোলায়ার হোসেনার টাকার গরমে এলাকায় সন্ত্রাসের রাজত্ব করতে চায় কিন্তু এনামুল মোল্লা তাদের এ কর্মকান্ডে বাধা দেওয়াতে এই অপপ্রচার করছে। এই জাকির হোসেন টিআই এতটাই স্বার্থপর যে কিনা নিজের স্বার্থ টিকিয়ে রাখার জন্য আপন চাচাতো ভাইকেও হত্যা করতে সংকোচ করেনি। যে মামলা এখনো চলমান এবং সে হুকুমের আসামী।

তাছাড়া দোলায়ার হোসেন অবৈধ অনেক টাকার মালিক হওয়ায় এলাকায় কাউকেই পরোয়া করেনা। এনামুল মোল্লার পরিবার এলাকার মধ্যে একটি সম্ভ্রান্ত পরিবার। তার বড় ভাই মজিবর রহমান সাতৈর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে সততা ও সুনামের সাথে তার দায়িত্ব পালন করে আসছে। তার সুনাম নষ্ট করতেও এই দলটি কাজ করে চলছে। আমরা প্রশাসনের কাছে এর সঠিক বিচার চাই।

এ ব্যাপারে সাতৈর ইউনিয়ন বিএনপি সভাপতি জাকির হোসেন টিআই এর সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি কল রিসিভ না করায় তার কাছ থেকে এ ব্যাপারে কিছু জানা যায়নি।


Spread the love