Spread the love

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ ফরিদপুর জেলার গুহলক্ষীপুর নিবাসী সাবেক কমিশনার মরহুম আলাউদ্দিন সেখ এর কনিষ্ট পুত্র বিশিষ্ট ব্যবসায়ী নেতা ও ফরিদপুর চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি মোঃ সিদ্দিকুর রহমানকে নিয়ে ফেইসবুক ও বিভিন্ন অনলাইন ফেসবুক মাধ্যমে যে ষড়যন্ত্রমুলক লেখালেখি ও তার জের ধরে ফরিদপুর সিএন্ডবি ঘাট সংলগ্ন এলাকায় কতিপয় অসৎ উদ্দেশ্যকারী সুযোগ সন্ধানী ব্যাক্তিবর্গের, সংবাদ সম্মেলনের জবাব দিতে পুনরায় সংবাদ সম্মেলন করেছেন সিদ্দিকুর রহমান।

৫ ই জুলাই ২০২০ তারিখ দুপুর ২ ঘটিকার সময় ফরিদপুর ষ্টেশন রোডস্থ ৩য় তলায় সিদ্দিকুর রহমানের নিজস্ব কার্যালয়ে এই সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

এ সময় সিদ্দিকুর রহমানের পক্ষে উপস্থিত ফরিদপুরে কর্মরত সাংবাদিকদের লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন আলাউদ্দিন ট্রেডিং কোঃ ম্যানেজার এ্যাডমিনেস্ট্রেশন অসিম কুমার কর্মকার।

তিনি তার লিখিত বক্তব্যে বলেন, মরহুম আলাউদ্দিন শেখ দীর্ঘ ৪০ বছর যাবৎ বিভিন্ন ব্যাবসা করে ফরিদপুরে ব্যাবসায়ীক ভাবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

গত ২০০৭ ইং সালে তিনি মুত্যু বরণ করার আগে থেকেই তার পুত্রগণ ব্যাবসা বাণিজ্যের ধারাবাহিকতা অব্যহত রেখে চলেছেন। সেই ধারাবাহিকতায় পারিবারিকভাবে তিনি নানা ব্যবসায়ের সাথে যুক্ত হয়েছেন। তিনি ঠিকাদারী কর্মকান্ডের পাশাপাশি আমদানি রফতানি ব্যবসায়ের সাথে যুক্ত রয়েছেন।

তার প্রতিষ্ঠানের মালিকানাধীন শ্রাবণী কনস্ট্রাকশন লিঃ আলাউদ্দিন ট্রেডিং কোং লিঃ ও আলাউদ্দিন অটো ব্রিকস রেডিমিট প্লান্ট, পাথর ক্র্যাসিং ব্যবসাসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কর্মকর্তা ও কর্মচারী মিলিয়ে ৩ শতাধিক জনবল জড়িত রয়েছেন।

সরকারের নিয়মাবলি মেনে একাধিকবার জেলার শীর্ষ আয়করদাতা হয়েছেন। যার মাধ্যমে তিনি দেশের চলমান উন্নয়নযজ্ঞে অবদান রাখাসহ সমাজের একজন সম্মানিত ব্যক্তিত্ব হিসেবে তিনি তাঁর অবস্থান হতে ভূমিকা রেখে চলেছেন বলে চেম্বারের পরিচালকমন্ডলী ও ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দরা সম্মেলনে অভিমত পোষণ করেন।

ব্যবসায়ী সিদ্দিকুর রহমান বিগত ১৯৯৮ সনে এফবিসিসিআই (চেম্বার অফ কমার্স) এর সদস্যপদ গ্রহণ করেন এবং তখন থেকেই চেম্বার কর্মকান্ডে সম্পৃক্ত।

তিনি ইতিপূর্বে ৪ বছর এফবিসিসিআই এর পরিচালক ছিলেন। এরপর দুই বছর এফসিসিআই এর সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট ও বর্তমানে প্রেসিডেন্ট পদে কর্মরত রয়েছেন।

বর্তমানে সিএন্ডবি ঘাট নিয়ে যে মিথ্যা অপপ্রচার করা হয়েছে তাহা সম্পুর্নই মনগড়া। কারন গত ২৯ শে জুন ২০২০ইং তারিখে উপ-পরিচালক এবং বন্দর ও পরিবহন কর্মকর্তা আরিচা নদী বন্দর, শেখ মোঃ সেলিম রেজা স্বাক্ষরিত এক আদেশে জানা যায়, রিয়াজ আহমেদ শান্তর নামে ফরিদপুর নদী বন্দর (সি এ্যান্ড বি) ঘাট এলাক্রা শুল্ক আদায় ও লেভার হ্যান্ডেলিং পয়েন্ট ঘাট/ পয়েন্টে এর ২০২০-২১ অর্থবছরে ১/৭/২০২০ তারিখ হতে ৩০/৬/২০২১ তারিখ পর্যন্ত মোট ৩৬৫ দিনের জন্য ইজারার নিমিত্তে কর্তপক্ষ কর্তৃক ৫০ লক্ষ টাকা প্রাক্কলিত মুল্যে নবায়নের সিন্ধান্ত গৃহিত হয়।

অতিসম্প্রতি বিভিন্ন নামীয় ফেসবুক আইডি থেকে মো: সিদ্দিকুর রহমানকে চাঁদাবাজ, টেন্ডার বাজ ও মাদক ব্যাবসায়ী হিসেবে মনগড়া পোষ্ট দিয়েছেন তার জবাবে বক্তারা বলেন ফরিদপুর জেলার সবোর্চ্চ আইন শৃঙ্খলার সভায় এযাবৎ কালে বা গত ৪৫ বছরে কখনো কোন অভিযোগ হয় নাই। এতেই প্রমানিত হয় যে স্বার্থান্বেষী মহল প্রতিহিংসা চরিতার্থ করেছেন।

ফেসবুকে প্রবীর শিকদার বলেছেন মো: সিদ্দিকুর রহমান অবৈধ ভাবে অন্যের জমি দখল করেছেন। এ ব্যাপারে কারো কোন অভিযোগ থাকে তবে তারা যেন আমাদের ও স্থানীয় প্রশাসনকে অবহিত করেন। এছাড়াও টেন্ডার ও ইজারা সংক্রান্ত বিষয়ে বলতে চাই, আমরা এ যাবৎ কালের যে সমস্ত দপ্তরে টেন্ডার দখল করেছি সেই সংশ্লিষ্ট দপ্তর গুলোতে খোজ নিয়ে দেখেন কোথায় আমরা অনিয়ম করেছি।

এ ছাড়াও আমার বর্তমান সম্পত্তির সাথে সরকারের আয়কর বিবরনীর মিল আছে কিনা তা ক্ষতিয়ে দেখার আহবান করছি এবং এ বিষয়ে যদি কোন প্রশ্ন থাকে তা আমাদের জানাবেন, আমরা সদুত্তর দেওয়ার জন্য প্রস্তুত আছি।

সিদ্দিকুর রহমান ফরিদপুরের স্বনামধন্য ব্যবসায়ী হওয়ায় বিভিন্ন সম্মানীয় ব্যাক্তিদ্বয়ের সাথে চলাফেরা করতে হয়। তাই এ ব্যাপার চক্ষুশিল হওয়ায় কিছু স্বার্থান্বেষী তথাকথিত হলুদ সাংবাদিক প্রবীর শিকদারের এইসকল অপপ্রচার করে আসছে। যা ডিজিটাল আইনের পরিপস্থী। তার এহেন অপপ্রচারের বিষয়ে আমরা প্রশাসনের উর্ধতন কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছি।


Spread the love