Spread the love

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ পদ্মা নদীর পানি হঠাৎ বৃদ্ধি পাওয়ায় ফরিদপুর সদর উপজেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে।

এছাড়া শহর রক্ষা বাধ ভেঙে তলিয়ে গেছে শতশত পরিবার। খাদ্য ও পানি সংকটে পরেছে এসব পরিবার। রান্না করে খাওয়ার মত কোন ব্যবস্থা এখনও করতে পারেনি এসব পরিবার, যদিও জেলা প্রশাসন ও উপজেলা প্রশাসন থেকে নিয়মিত ভাবে শুকনো খাবার ও পানি বিশুদ্ধ করণ ট্যাবলেট সরবরাহ করা হচ্ছে।

এরই মাঝে এক ব্যাতিক্রমী উদ্বোগ নিয়েছে উপজেলা প্রশাসন। ঘরবাড়ি ছাড়া এসকল পরিবারের সদস্যদের মাঝে রান্না করা খাবার বিতরণ করছে উপজেলা প্রশাসন। সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাসুম রেজার নেতৃত্বে স্বেচ্ছাসেবক সংগঠন তরুছায়ার কর্মীরা সকাল থেকে খাবার রান্না করে পৌছে দিচ্ছেন এসকল পরিবারের হাতে।

ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক অতুল সরকার আজ এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।

মাসুম রেজা জানান, জেলা প্রশাসক অতুল সরকার স্যারের নির্দেশনায় উপজেলা প্রশাসন থেকে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন তরুছায়ার সহযোগীতায় প্রতিদিন ৫০০ জনের জন্য রান্না করা খাবার বিতরণ করা হচ্ছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত আমাদের এ কার্যক্রম চলবে। এছাড়া শুকনো খাবার, পানি বিশুদ্ধ করন ট্যাবলেটসহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদিও সরবরাহ করা হচ্ছে।

ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক অতুল সরকার বলেন, অসহায় মানুষদের পাশে সব সময় দাড়িয়েছে জেলা প্রশাসন। বন্যা দূর্গতদের পাশেও জেলা প্রশাসন সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। ইতিমধ্যেই বন্যাদূর্গতদের মাঝে ত্রাণ সহায়তা প্রদান শুরু হয়েছে। বন্যা কবলিতদের যাতে কোনো সমস্যা না হয় সেজন্য সংশ্লিষ্ট ইউএনওদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। পর্যাপ্ত ত্রাণ মজুদ রয়েছে, কোনো মানুষ না খেয়ে থাকবে না।

জেলা প্রশাসক আরো বলেন, দূর্গতদের জন্য সকল ধরনের সহায়তার ব্যবস্থা করা হয়েছে। একাধিক আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত করা হয়েছে। চাল, ডাল, পানি বিশুদ্ধ করন ট্যাবলেট ও শুকনা খাবার বিতরণ অব্যাহত থাকবে।


Spread the love