আজ শনিবার, ১১ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং,সকাল ৭:১৮

ফরিদপুর জেলা প্রশাসনের আয়োজনে বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যদিয়ে জাতীয় শোক দিবস পালিত

নিজস্ব প্রতিবেদক : ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস। বাঙালি তথা বাংলাদেশের গভীরতম বেদনার দিন। বাংলার আকাশ বাতাস নিসর্গ প্রকৃতির অশ্রুসিক্ত হওয়ার ক্ষণ। ১৯৭৫ সালের এই দিনে ঘাতকের নির্মম বুলেটের কাছে আমরা হারিয়েছে আবহমান বাংলা ও বাঙালির পরম আরাধ্য পুরুষ, স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি, মহাকালের মহানায়ক জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর পরিবারের অধিকাংশ সদস্যকে। সেই মহাত্মাদের স্মরণে যথাযথ মর্যাদায় ১৫ আগস্ট, ২০২০ প্রভাতে ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক অতুল সরকার জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এ সময় ফরিদপুরের বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে ফরিদপুর জেলা প্রশাসনের আয়োজনে জেলা প্রশাসক অতুল সরকারসহ সংশ্লিষ্ট সকলে সকাল ৮ টায় অম্বিকা ময়দানে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুবর রহমান এর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এর আগে তাঁদের স্মরণে দোয়া ও এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। এছাড়া সূর্যোদয়ের সাথে সাথে স্ব স্ব কার্যালয় ও প্রতিষ্ঠানসমূহে সকল সরকারি, আধা সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান, শিা প্রতিষ্ঠান ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানসমূহে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা এবং কালো পতাকা উত্তোলন করা হয়।

জেলা প্রশাসনের আয়োজনে সকাল ১০.০০ ঘটিকায় জুম কাউড অ্যাপের মাধ্যমে স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিুবুর রহমান এর জীবনীর উপর ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে আলোচনা সভা এবং চিত্রাঙ্কন, কুইজ ও রচনা প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ (বাহক মারফত প্রেরণ করা হয়)।

বাদ জোহর জেলা প্রশাসকের কার্যালয় সংলগ্ন শাহ-ফরিদ দরগা জামে মসজিদসহ জেলার সকল মসজিদে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর পরিবারের ১৫ আগস্টে নিহত শহীদ সদস্যদের রুহের মাগফিরাত কামনায় একশত আলেম দ্বারা ১০০ (একশত) বার পবিত্র কোরআন শরীফ খতম ও বিশেষ মোনাজাত অনুষ্ঠিত হবে। আজকে সুবিধামত সময়ে রামকৃষ্ণ মিশন আশ্রম, ফরিদপুর সহ জেলার সকল মন্দির, ব্যাপ্টিষ্ট চার্চসহ সকল গীর্জা, জেলার সকল প্যাগোডাসহ অন্যান্য ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে বিশেষ প্রার্থনা অনুষ্ঠিত হয়।

শোক দিবস উপলে গত ১২ আগস্ট বেলা ৩.০০ ঘটিকায় বাসায়-নিজ অবস্থান থেকে শিশুদের অংশগ্রহণে অনলাইনে চিত্রাঙ্কন, বঙ্গবন্ধুর জীবনীর উপর কুইজ ও রচনা প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। ১৪ আগস্ট অপরাহ্নে শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থান ও ভবনসমূহে ড্রপ ডাউন ব্যানার স্থাপন করা হয়। এছাড়া ০১ আগস্ট থেকে জনতা ব্যাংক মোড়, ভাংগা রাস্তার মোড়, টেপাখোলা মোড়সহ শহরের অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ উন্মুক্তস্থান ও শহরের বিভিন্ন স্থানে অবস্থিত ডিজিটাল ডিসপ্লে বোর্ডে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর উপর চিরঞ্জিব বঙ্গবন্ধু, বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ, ছোটদের বঙ্গবন্ধু এবং স্বাধীনতা আমার স্বাধীনতা শীর্ষক প্রামান্য চিত্র প্রদর্শন শুরু হয়েছে। চলবে আগামী ৩১ আগস্ট পর্যন্ত।

     আরো পড়ুন