Spread the love

রবিউল হাসান রাজিবঃ ফরিদপুরে বন্যা পরবর্তী স্বাস্থ্য সুরক্ষায় সদর উপজেলার নর্থ চ্যানেল ইউনিয়নে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১১ টায় সদর উপজেলার নর্থ চ্যানেল ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে সদর উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের সহযোগীতায় এই মেডিকেল ক্যাম্পটি অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সদর উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের সহযোগীতায় এই মেডিকেল ক্যাম্পটি অনুষ্ঠিত হয়েছে।

স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা মন্ত্রনালয়ের স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের অর্থায়নে ফ্রি এই মেডিকেল ক্যাম্পটি বাস্তবায়ন করেন ফরিদপুর ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন, পুর্ব খাবাসপুর মহিলা উন্নয়ন সংঘ, মহিলা উন্নয়ন ফাউন্ডেশন ও আদর্শ পাঠাগার স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন।

ফরিদপুর ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও জেলা আওয়ামীলীগ সহ সভাপতি শামীম হকের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাসুম রেজা।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিবার পরিকল্পনার উপ-পরিচালক সরদার মোঃ হান্নান, সদর উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান এ্যাড. শামসুল হক ভোলা মাষ্টার, নর্থ চ্যানেল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ মোস্তাকুজ্জামান, সদর উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মোহাম্মদ কামরুল হাসান। এছাড়া নর্থ চ্যানেল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোঃ মোফাজ্জেল হোসেন, পুর্ব খাবাসপুর মহিলা উন্নয়ন সংঘের সাধারণ সম্পাদক বেগম হিরুন্নাহারসহ অন্যান্য সংগঠনের কর্মকর্তাবৃন্দ ও আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।

সারাদিন ব্যাপী এই ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্পে নারী, শিশু, বয়স্ক রোগী ছাড়াও গর্ভবতী নারীদের জন্যও ছিল বিশেষ চিকিৎসা ব্যবস্থা। ৫ জন চিকিৎসকসহ বেশ কিছু স্বাস্থ্য সহকারী ও স্বেচ্ছাসেবী ৫ শতাধিক রোগীদের চিকিৎসা দিয়েছেন এবং ৪০ ধরনের ঔষধ রোগীদের মাঝে যার যার প্রয়োজন অনুযায়ী সরবারহ করা হয়েছে।

অনুষ্ঠানে শামীম হকের পক্ষ থেকে ৩০ হাজার মাস্ক ও মোঃ মোফাজ্জেল হোসেনের পক্ষ থেকে ৩ হাজার মাস্ক সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

প্রধান অতিথি বলেন, জনগণের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় সরকারের নানামুখি পদক্ষেপ রয়েছে। বন্যার সময় উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে বিভিন্ন জায়গায় এ ধরনের ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্পের আয়োজন করা হয়েছিল। বন্যা পরবর্তী সময়েও এ কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। সারা বিশ্বের মত আমাদের দেশেও করোনা সংক্রমন হয়েছে। করোনার শুরু থেকেই মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী আমার আপনাদের দোর গোড়ায় সকল প্রকার মানবিক সহায়তা পৌছে দিয়েছি। পরবর্তীতে বন্যা কালীনও আমরা আপনাদের পাশে থেকে যাতে কোন সমস্যা না হয় তার ব্যবস্থা করেছি। মনে রাখবেন করোনা এখনও নির্মুল হয়নি। করোনায় সকল স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। এটাকে এখনও স্বাভাবিক ভাবে নেওয়া যাবে না।

এ সময় তিনি সদর আসনের এমপি ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন ও জেলা প্রশাসক অতুল সরকারের প্রশংসা করে বলেন, এমপি মহোদয় অসুস্থ থাকা সত্বেও করোনা কালীন সার্বিক খোজ খবর রেখেছেন ও প্রয়োজনীয় দিক নির্দেশনা দিয়েছেন। আর জেলা প্রশাসক মহোদয়ের উদ্ভাবন মানবিক সহায়তা কার্ড ও করোনায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সচল রাখার জন্য উদ্ভাবিত অনলাইন ভিত্তিক ভার্চুয়াল স্কুল দেশ ব্যাপী মডেল হয়েছে এবং প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক প্রশংসিত হয়েছে।


Spread the love