আজ বৃহস্পতিবার, ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ৩রা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ,সকাল ৯:৩৯

জেল হত্যা দিবসে বঙ্গবন্ধুও জাতীয় চার নেতার প্রতিকৃতিতে জেলা আওয়ামীলীগের শ্রদ্ধা নিবেদন ও দোয়া কামনা

রবিউল হাসান রাজিবঃ
৩রা নভেম্বর জেলহত্যা দিবস। বাঙালী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে ’৭৫ এর ১৫ আগস্ট স্ব-পরিবারে হত্যার পর জাতির ইতিহাসে এটি দ্বিতীয় কলংকজনক অধ্যায়।
১৫ আগস্টের নির্মম হত্যাকাণ্ডের পর তিন মাসেরও কম সময়ের মধ্যে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম বীর সেনানী ও চার জাতীয় নেতা সৈয়দ নজরুল ইসলাম, তাজউদ্দিন আহমেদ, এএইচএম কামারুজ্জামান এবং ক্যাপ্টেন মনসুর আলীকে এই দিনে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের অভ্যন্তরে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। এর আগে ১৫ আগস্টের পর এই চার জাতীয় নেতাকে কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়।
জাতি আজ মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম বীর সেনানী ও চার জাতীয় নেতাকে যথাযথ শ্রদ্ধা প্রদর্শনের মাধ্যমে দেশের ইতিহাসের অন্যতম বর্বরোচিত এই কালো অধ্যায়টিকে স্মরণ করছে। আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ স্বাস্থ্যবিধি মেনে সারাদেশে পালন করছে শোকাবহ এই দিনটি।
আওয়ামীলীগের কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা অর্ধনমিতকরণ, কালো পতাকা উত্তোলন এবং কালো ব্যাজ ধারণ।
সকাল ৮.৩০ মিনিটে থানা রোডে জেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে জাতীয় সংগীতের সাথে জাতীয় ও দলীয় পতাকা অর্ধনমিত করণের সাথে কালো পতাকা উত্তোলন করেন জেলা আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। পতাকা উত্তোলন শেষে বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করেন নেতৃবৃন্দ। শহীদদের আত্মার শান্তি কামনায় এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।
এ সময় সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন  জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি এ্যাডঃ সুবল চন্দ্র সাহা, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মাসুদ হোসেন, জেলা আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এ্যাডঃ শামসুল হক ভোলা মাষ্টার, সহ-সভাপতি শামীম হক, জেলা কৃষকলীগ সভাপতি শেখ শহিদুল ইসলাম, কোতোয়ালি আওয়ামীলীগ সভাপতি আঃ রাজ্জাক মোল্লা, শ্রমিকলীগ সভাপতি আক্কাস হোসেন,  স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি শওকত আলী জাহিদ।
এছাড়া আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক ঝর্না হাসান, কোতয়ালী আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক অমিতাভ বোস, মহিলা আওয়ামীলীগের সদস্য সচিব আইভি মাসুদ, জেলা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডঃ প্রদীপ কুমার দাস লক্ষণসহ জেলা আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।
অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক এ্যাডঃ অনিমেষ রায়।
বক্তারা বলেন, শত্রুরা ভেবেছিলো বঙ্গবন্ধুর সাথে জাতীয় এ চার নেতাকে হত্যা করলে আওয়ামীলীগকে নিশ্চিহ্ন করে দেয়া যাবে। কিন্তু ওরা জানতো না যে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিকদের নিশ্চিহ্ন করা সম্ভব না। আজ বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামীলীগ সুসংগঠিত। তার নেতৃত্বে দেশ আজ উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রেখেছে। আজকের এই শোককে শক্তিতে রুপান্তরিত করে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে আমরা কাজ করে যাবো।

     আরো পড়ুন