আজ বৃহস্পতিবার, ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ৩রা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ,সকাল ১০:৩৬

ফরিদপুরে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে সচেতন হতে একযোগে জেলা-উপজেলাতে জনসচেতনামূলক কার্যক্রম ও পথচারীদেরকে বিনামূল্যে মাস্ক বিতরণ

রবিউল হাসান রাজিবঃ “মুখে মাস্ক নেই, সেবা নেই” এই শ্লোগান নিয়ে ফরিদপুরে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে জেলা ও জেলার সকল উপজেলায় একযোগে ব্যাপক জনসচেতনতামূলক কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এতে জেলার সকল জনপ্রতিনিধি, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী, মুক্তিযোদ্ধা, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষকবৃন্দ, প্রাথমিক পর্যায়ের শিক্ষকবৃন্দ, সরকারি বেসরকারি বিভিন্ন কলেজের শিক্ষকবৃন্দ, সাংবাদিকবৃন্দ, রোভার, বিএনসিসি, স্কাউটস, গার্লস গাইড এবং সর্বস্তরের জনসাধারণের সমন্বয়ে সমগ্র ফরিদপুর জেলায় একযোগে মহামারী করোনা (কোভিড-১৯) সংক্রমণ প্রতিরোধে জনসচেতনামূলক এই কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হয়েছে।

৭ই নভেম্বর শনিবার সকাল দশটায় সদর উপজেলা চত্বর থেকে শুরু করে টেপাখোলা রেল লাইন পর্যন্ত জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের সামনের সড়কে করোনার বিরুদ্ধে এক মানবঢাল গঠিত হয়।

জেলা প্রশাসক অতুল সরকার বলেন, বিশেষজ্ঞরা ধারনা করছেন আসন্ন শীতে করোনার সংক্রমণ দ্বিতীয় ধাপে হতে যাচ্ছে। এজন্য করোনা মোকাবেলায় সরকার ইতিমধ্যে সকল প্রকার ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। তিনি বলেন করোনা থেকে বাঁচার অন্যতম প্রধান উপায় নিজেদেরকে সচেতন হিসেবে গড়ে তোলা। সকলকে মাস্ক পড়ে বাহিরে বের হতে হবে। মাস্ক ছাড়া কেউ সরকারী-বেসরকারী কোন সেবা পাবে না। একই সাথে তিনি বলেন সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও ব্যবসা বাণিজ্য প্রতিষ্ঠানে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। এছাড়া কোন দোকানি মাস্ক না পড়লে ক্রেতারা ঐ দোকান থেকে মালামাল ক্রয় করবেন না, আর কোন ক্রেতা মাস্ক না পড়লে তার নিকট দোকানদার পণ্য বিক্রি করবেন না। তিনি সবাইকে সামাজিক নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখে চলাচল করার জন্য আহ্বান জানান।

সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাসুম রেজা বলেন, আসন্ন শীতে করোনার প্রাদুর্ভাব মোকাবেলায় মান্যবর জেলা প্রশাসক অতুল সরকার স্যারের এক ব্যতিক্রমী উদ্যোগের অংশ হিসেবে আমরা সদর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে জেলা প্রশাসনের সাথে মিল রেখে একই সময়ে সদর উপজেলা চত্বর থেকে এ মানবঢাল তৈরিতে অংশ নিয়েছি। করোনার সংক্রমণ প্রতিরোধে মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা “নো মাস্ক, নো সার্ভিস” বাস্তবায়ন করছি। এছাড়া বার বার হাত ধোয়া, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহারসহ নিরাপদ দুরত্ব বজায় রেখে চলতে হবে।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক মোঃ মনিরুজ্জামান, সরকারি রাজেন্দ্র কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মোশার্রফ আলী, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাসুম রেজা, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আঃ রাজ্জাক মোল্লা, সাবেক জেলা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ আবুল ফয়েজ শাহনেওয়াজ, জেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ঝর্ণা হাসান, এতিহ্যবাহী প্রেসক্লাবের সভাপতি কবিরুল ইসলাম সিদ্দিকী, জেলা শিক্ষা অফিসার বিষ্ণুপদ ঘোষাল, ফরিদপুর ডেভেলপমেন্ট অ্যাসোসিয়েশন এফডিএ’র পরিচালক মোঃ আজহারুল ইসলাম, প্রথম আলো জেলা প্রতিনিধি সিনিয়র সাংবাদিক পান্না বালা প্রমুখ।

এছাড়াও এ ব্যতিক্রমধর্মী আয়োজনে ছাত্র-ছাত্রীসহ স্কাউটিং এর সদস্যরা সড়কে নিরাপদ দুরত্ব বজায় রেখে প্লেকার্ড হাতে নিয়ে প্রদর্শন করেন। জেলার ২৫ কিলোমিটার সড়ক এভাবে জনসচেতনতামূলক কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হয়েছে। এছাড়াও জেলা-উপজেলায় মাস্ক পরিহিত না থাকা সকল পথচারী ব্যক্তিদের মাঝে বিনামূল্যে মাস্ক বিতরণ করা হয়েছে।

     আরো পড়ুন