Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

রবিউল হাসান রাজিবঃ “বেশি বেশি মাছ চাষ করি, বেকারত্ব দূর করি” শ্লোগান নিয়ে ২৮ আগস্ট হতে ০৩ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত জাতীয় মৎস সপ্তাহ পালন করা হচ্ছে। জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ ২০২১ উপলক্ষে মৎস চাষীদের প্রশিক্ষণ ও বিনামূল্যে মৎস উপকরণ বিতরণ করা হয়েছে।
০২ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টায় ফরিদপুর জেলা মৎস্য কর্মকর্তার কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসন ও জেলা মৎস্য অধিদপ্তর এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
অনুষ্ঠানে ফরিদপুর জেলা প্রশাসক অতুল সরকারকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেন জেলা মৎস্য কর্মকর্তাবৃন্দরা।
জেলা প্রশাসকের উপস্থিতিতে জাতীয় মৎস্য দিবস ২০২১ উপলক্ষে অনুষ্ঠানে কেক কেটে এ দিবসের কর্মসূচি পালন করা হয়েছে।
এ অনুষ্ঠানে সুফলভোগীদের প্রশিক্ষণ ও মৎস উপকরণ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে প্রশিক্ষণ কার্যক্রমের উদ্বোধন, সুফলভোগীদের মাঝে বিনামূল্যে মৎস উপকরণ ও মৎস খাদ্য বিতরণ করেন ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক অতুল সরকার।
জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ মনিরুল ইসলাম এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ কার্যক্রমে আরও উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা বিজন কুমার নন্দী, চরভদ্রাসন উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা এস এম মাহমুদুল হাসান, খামার ব্যবস্থাপক রবিউল করিম প্রমুখ। এ সময় চরভদ্রাসন, মধুখালী, আলফাডাঙ্গা থেকে আগত মৎস্য চাষী ও মাছ ব্যবসায়ীরা উপস্থিত ছিলেন।
জেলা প্রশাসক বলেন, মাছ চাষের জন্যে মাছকে উন্নত ও বিশুদ্ধ খাবার দিতে হবে। কারন বিষাক্ত খাবার মানুষের জন্য বড় সমস্যা। এ জন্য মাছকে কোনভাবেই দুষিত খাবার দেওয়া যাবে না। তাহলে এ মাছ খেলে মানুষের সমস্যা হবে না। যেমন গবাদিপশু মোটাতাজা করতে বিভিন্ন ওষুধ প্রয়োগ করে পরবর্তীকে সে গোস্ত খেলে মানুষের শারিরীক সমস্যা হয়। আপনারা নিজেরাই সিদ্ধান্ত নেন দুষিত খাবার খেতে চান নাকি বিশুদ্ধ খাবার? তাছাড়া আপনাদের বিভিন্ন বিষয়ে সেবা প্রদান করার জন্য প্রত্যেক উপজেলায় বিসিএস অফিসার নিয়োজিত রয়েছে। আপনারা এই সুবিধা নিয়ে মৎস চাষে আরও এগিয়ে যাবেন।
জেলা প্রশাসক আরও বলেন, বর্তমানে চায়না দুয়ারী আমাদের মৎস্য বৃদ্ধির জন্য সবচেয়ে বড় সমস্যা সৃষ্টি করেছে। আপনারা অভিযান পরিচালনা করে এ ক্ষতিকর চায়না দুয়ারী ও কারেন্ট জাল জব্দ করে ধ্বংস করেন, জেলা প্রশাসন আপনাদের সকল প্রকার সহযোগীতা করবে।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •