Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মোঃ মহিউদ্দিন, ভাংগা প্রতিনিধি: গতকাল মঙ্গলবার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ভাংগা থানার এসআই(নিঃ)/মোঃ তোফাজ্জল হোসেন, সঙ্গীয় অফিসার ফোর্সের সহায়তায় সংঘবদ্ধ ব্ল্যাকমেইল চক্রের সদস্য নূর জাহান বেগম(৪৫), পিতা- মৃত হাজী ওসমান, মাতা- আনোয়ারা বেগম, স্থায়ী : সাং- কাউলীবেড়া, থানা- ভাঙ্গা, জেলা- ফরিদপুর, বর্তমান : সাং- কাপুড়িয়া সদরদী, থানা- ভাঙ্গা, জেলা- ফরিদপুরকে ব্ল্যাকমেইল করে অর্থ আদায় করাকালীন সময়ে ভাঙ্গা বাজার হতে ব্ল্যাকমেইলের টাকা সহ হাতেনাতে গ্রেফতার করেন। সংঘবদ্ধ ও সুচতুর চক্রটির সদস্যদের মধ্যে নারী ও পুরুষ সদস্যরা রয়েছে। তারা একজন ব্যক্তিকে (বিত্তবান/সামাজিক মর্যাদা সম্পন্ন) টার্গেট করে তার সাথে সু-সম্পর্ক গড়ে তুলে। পরবর্তীতে উক্ত ব্যক্তিকে আসামীরা তাদের ভাড়া করা ফ্ল্যাট/আসামীদের মালিকানাধীন বাসা বাড়িতে দাওয়াত দিয়ে বা কৌশলে নিয়ে যায়। সেখানে সংঘবদ্ধ চক্রের সদস্যরা ভিকটিমকে মারধর, বিভিন্ন প্রকার ভয়ভীতি ও হুমকি ধমকি প্রদর্শন করে উলঙ্গ করে (ভিকটিম পুরুষ হলে চক্রের মহিলা সদস্যরা উলঙ্গ হয়ে ভিকটিমের সাথে, ভিকটিম নারী হলে চক্রের পুরুষ সদস্যরা উলঙ্গ হয়ে ভিকটিমের সাথে) ছবি তুলে ও ভিডিও করে উক্ত ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়া এবং ইন্টারনেটে ছেড়ে দিবে বলে মোটা অংকের অর্থ আদায় করে। ভিকটিম সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন হওয়ার ভয়ে কিংবা লজ্জায় উক্ত অর্থ চক্রের সদস্যদের কাছে হস্তান্তর করে কিন্তু কাউকে বলতে পারেন না। এই সুযোগে চক্রটি বিভিন্ন ব্যক্তিকে টার্গেট করে ব্ল্যাকমেইল করে অর্থ আদায় করে আসতেছিল। একই পদ্ধতি একজন ভিকটিমকে ব্ল্যাকমেইল করে ভিকটিমের নিকট হতে সংঘবদ্ধ চক্রটি অর্থ আদায় করে। গত ১২/১০/২১খ্রিঃ পুনরায় তাহার কাছ হতে অর্থ আদায় করতে আসলে ভাঙ্গা থানা পুলিশ ঘটনাস্থল হতে চক্রের একজন নারী সদস্যকে গ্রেফতার করেন। তার নিকট হতে চক্রটির অন্যান্য সদস্যাদের সাথে সার্বক্ষণিক যোগাযোগের একটি মোবাইল ফোন ও ব্ল্যাকমেইল করে নেওয়া অর্থের মধ্য হতে ২,০০০/-(দুই হাজার) টাকা উদ্ধার পূর্বক জব্দ করেন। তার বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা রুজু করতঃ তাকে বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।


Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •