Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মোঃ মহিউদ্দিন, ভাংগা প্রতিনিধি: ফরিদপুরের ভাঙ্গায় ভাঙ্গা সাব-রেজিস্ট্রার অফিসে সোমবার জাল দলিল করতে গিয়ে ধরা পড়েও পালিয়ে যায় এক দম্পতি। ঘটনাটি জানাজানি হলে স্থানীয়দের রোষানলে পড়েন সাব-রেজিস্ট্রার নাজমুল হাসান। অভিযোগ উঠেছে, বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করছে একটি কুচত্রক্রী মহল।
স্থানীয়রা জানান, দীর্ঘদিন ধরে একটি কুচত্রক্রী মহল প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে ভাঙ্গা সাব-রেজিস্ট্রার অফিসের কিছু অসাধু কর্মচারীর সহযোগিতায় ভুয়া দলিলের কাজ করে কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ বনে গেছেন। অথচ অদৃশ্য শক্তির বলে তারা বহাল তবিয়তে তাদের অবৈধ কার্যক্রম অবাধে চালিয়ে যাচ্ছে।
ভাঙ্গার সাব-রেজিস্ট্রার নাজমুল হাসান দৈনিক আজকের সারাদেশকে জানান, বিকেলে একটি দলিল রেজিস্ট্রি করতে তার অফিসে আসেন দলিলদাতা দিবা আক্তার ও তার স্বামী আকরাম হোসেনসহ স্থানীয় ভেন্ডার লুৎফর রহমান, মুহুরী করিম ফকির এবং দলিল শনাক্তকারী হাসান মাতুব্বর ও সাইফুল ইসলাম। এ সময় তাদের সঙ্গে ছিলেন দলিল গ্রহীতা সোনাখোলা গ্রামের শামিম মাতুব্বর। এক পর্যায়ে কাগজপত্র গোপনে যাচাই-বাছাই করলে তা ভুয়া বলে প্রমাণিত হয়। বিষয়টি টের পেয়ে তারা দ্রুত অফিস থেকে বেরিয়ে যান। দলিলদাতা দিবা আক্তারকে আটক করা হয়। পরে তার স্বামী আকরাম হোসেন সহযোগীদের নিয়ে অফিস কক্ষে ফিরে এসে টেবিলে থাকা বেশ কিছু কাগজপত্র ছিঁড়ে ফেলেন এবং দিবাকে নিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়। বিষয়টি তৎক্ষণাৎ জেলা রেজিস্ট্রার কর্মকর্তাসহ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভাঙ্গা থানা পুলিশকে অবহিত করা হয়েছে।
ভাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আজিম উদ্দিন দৈনিক আজকের সারাদেশকে জানান, এ বিষয় তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। অভিযুক্ত আকরাম হোসেন জানান, তিনি কোনো ভুয়া দলিল করতে যাননি।

 


Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •