Spread the love

নিজস্ব প্রতিবেদক, খুলনাঃ রূপসা উপজেলার নৈহাটি ইউনিয়নের বাগমারা গ্রামে দোকান বাকির পাওনা টাকা চাওয়ার জের ধরে ছুরিকাঘাতের ঘটনায় হৃদয় শেখ (১৮) নামে এক যুবক নিহত ও দুইজন আহত হয়েছে। আহতরা হলো বাগমারা গ্রামের মৃত আবুল কালাম সরদারের ছেলে মিঠু (২২) ও বাগমারা আদর্শ গলির ফল ব্যবসায়ী আফসার শেখ এর ছেলে নাজমুল শেখ (২২)। ২০ এপ্রিল আনুমানিক সন্ধ্যা ৭টা ১৫ মিনিটের সময় পূর্ব রূপসা বাসস্ট্যান্ড পুলিশ ফাঁড়ির সামনে এঘটনা ঘটে। পুলিশ ও নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে বাগমারা গ্রামের মীর বাড়ির মৃত আবুল কালাম সরদারের ছেলে মিঠু সরদার ও তার খালাতো ভাই হারুন শেখ এর ছেলে হৃদয় পূর্ব রূপসা বাসস্ট্যান্ড পুলিশ ফাঁড়ির সামনে দীর্ঘদিন ধরে চা-পানের দোকান দিয়ে ব্যবসা করে আসছে। গত কয়েক মাস ধরে পূর্ব রূপসা বাজারের আদর্শ গলির চোর হিসেবে চিহ্নিত মৃত পলাশের ছেলে হৃদয় ও অন্তর মিঠুর দোকানে বাকিতে চা ও অন্যান্য খাদ্য সামগ্রী বেচাকেনা করে আসছে। গত ২০ এপ্রিল দুপুরে চায়ের দোকানদার মিঠু, হৃদয় ও অন্তরের নিকট পাওনা টাকা চাইলে উভয়ের মধ্যে বাক-বিতন্ডা ঘটে। ওই ঘটনার জের ধরে ইফতারির পর আনুমানিক সন্ধ্যা ৭টা ১৫ মিনিটের সময় হৃদয় ও অন্তরসহ ১০-১২ জনের একটা সঙ্ঘবদ্ধ গুরুপ দোকানে এসে মিঠুকে মারপিটসহ ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করতে থাকে। এসময় মিঠুকে তাদের কবল থেকে রক্ষা করতে খালাতো ভাই হৃদয় শেখ এগিয়ে আসলে তার উপর চড়াও হয়ে পেটে ছুরিকাঘাত করে দুষ্কৃতকারীরা পালিয়ে যায় । এসময় নাজমুল প্রতিপক্ষের হামলায় গুরুতর আহত হয়। পরে হৃদয়ের পরিবারের লোকজন ও স্থানীয়রা রক্তাক্ত জখম অবস্থায় আহত মিঠু ও হৃদয়কে উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক হৃদয়কে মৃত বলে ঘোষণা করে। এছাড়া নাজমুলের পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে পূর্ব রূপসার একটি স্থানীয় ক্লিনিকে ভর্তি করে। নিহতের পিতা বাদী হয়ে ১১ জনের নাম উল্লেখ করে রুপসা থানা একটি মামলা দায়ের করেছেন মামলা নং -১৭ তাং ২১/০৪/২০২২ উক্ত মামলায় মধ্যে পুলিশ আহত নাজমুল সহ ৫ জনকে আটক করেছে। এবিষয়ে রূপসা অফিসার ইনচার্জ সরদার মোশাররফ হোসেন বলেন এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় জড়িত সন্দেহে গতকাল থেকে অভিযান চালিয়ে ৫ জনকে আটক করা হয়েছে। বাকিদেরও আটক করতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।


Spread the love